আবারো বাড়ানো হয়েছে গ্যাসের দাম

by SmartCareer
Ministry of Power, Energy and Mineral Resources

সরকারের নির্বাহী আদেশে বিদ্যুতের পর আবারো বাড়ানো হয়েছে শিল্প খাতে গ্যাসের দাম । বুধবার ১৮ ই জানুয়ারি দুপুর এ দাম বৃদ্ধির সরকারি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ। এক্ষেত্রে পরিবহন সেক্টরে ব্যবহৃত সিএনজি ও বাসায় ব্যবহৃত গ্যাসের দাম বাড়ায়নি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়। বর্ধিতমূল্য ফেব্রুয়ারি মাসের ১ তারিখ থেকে কার্যকর হবে বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ রয়েছে।

জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগের উপসচিব (বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের) শেখ মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়, ভর্তুকি সমন্বয় করে এ বর্ধিত মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

বর্ধিত মূল্যের কারণে, বৃহৎ শিল্প-প্রতিষ্ঠানে গ্যাসের দাম প্রতি ইউনিট ১১ টাকা ৯৮ পয়সা থেকে বৃদ্ধি করে ৩০ টাকা করা হয়েছে। অর্থাৎ, দাম বেড়েছে পূর্বের তুলনায় প্রায় তিন গুণ।

শিল্প প্রতিষ্ঠানে নিজস্ব উৎপাদিত বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য ইউনিট প্রতি গ্যাসের দাম ১৬ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৩০ টাকা নির্ধারণ করেছে।

সার শিল্পে ব্যবহৃত গ্যাসের দাম প্রতি ইউনিট ১৬ টাকা এখনো অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে।

মাঝারি শিল্প প্রতিষ্ঠানে ব্যবহৃত গ্যাসের দাম প্রতি ইউনিট ১১ টাকা ৭৮ পয়সা থেকে বৃদ্ধি করে ৩০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

ক্ষুদ্র ও কুটিরশিল্প প্রতিষ্ঠানে ব্যবহৃত গ্যাসের দাম প্রতি ইউনিট ১০ টাকা ৭৮ পয়সা থেকে বৃদ্ধি করে ৩০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

তবে চা–বাগানের ক্ষেত্রে প্রতি ইউনিট গ্যাসের দাম ১১ টাকা ৯৩ পয়সা এখনো অপরিবর্তিত রয়েছে।

হোটেল ও রেস্তোরাঁ ব্যবসায়ে ব্যবহৃত বাণিজ্যিক শ্রেণির যেসকল গ্রাহক রয়েছে ফেব্রুয়ারি হতে প্রতি ইউনিটে দাম দেবেন ৩০ টাকা ৫০ পয়সা। পূর্বে মূল্য ছিল প্রতি ইউনিট ২৬ টাকা ৬৪ পয়সা।

এর আগে গত ৯ জানুয়ারি বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এক অনুষ্ঠানে জানিয়েছিলেন, বিশ্ববাজারে ক্রমাগত দাম বৃদ্ধির সাথে তালমিলিয়ে বাংলাদেশেও দাম সমন্বয় করা হবে।

গত বছরের জুন মাসে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় গ্যাসের মূল্য ২২.৭৮ শতাংশ বাড়িয়েছিল বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। তখন সার শিল্পে ১১.৯৬ শতাংশ (বৃহৎ শিল্পে ১১.৯৮ টাকা,মাঝারি শিল্পে ১১.৭৮ টাকা, উৎপাদনে ২৫৯ শতাংশ, চা শিল্পে ১১.৯৩ টাকা), বিদ্যুতে ১২ শতাংশ, ক্ষুদ্র ও কুটিরশিল্পে ১০.৭৮ টাকা, ক্যাপটিভে ১৫.৫ শতাংশ দাম বৃদ্ধি করা হয়েছিল।

এ ছাড়া আবাসিক ক্ষেত্রে একচুলার গ্যাসের মূল্য ৯৫০ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৯৯০ টাকা, দুই চুলার গ্যাসের মূল্য ৯৭৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১০৮০ টাকা করা হয়েছিল। প্রি-পেইড মিটার আবাসিক ব্যবহারকারী গ্রাহকদের ইউনিটপ্রতি দর ১২.৬০ থেকে বৃদ্ধি করে ১৮ টাকা, সার উৎপাদনে ঘনমিটার ৪.৪৫ থেকে বাড়িয়ে ১৬ টাকা করা হয়েছিল । এক্ষেত্রে পূর্বের মূল্য এখনো  বলবত আছে।

You may also like